Jan 21, 2018
9 Views
0 0

আজ নাকি তোদের ফেয়ারওয়েল!

লিখেছেন:

জর্জ দর্শন চাকমাঃ শুনেছি রাজনৈতিক কারণে একজন জুম্ম মেধাবী ছাত্রের বিসিএস হয় নি। কিন্তু এতে সে নিরাশ হয়ে থেমে থাকে নি। স্কলারশিপ পেয়ে আরো উচ্চ শিক্ষার জন্য সে এখন অস্ট্রেলিয়ায়! যতই বঞ্ছিত হও কখনো পিছপা হইও না।

সুন্দর ও দামী কাপড় পড়লে মানুষ বড় হয় না। মানুষ বড় হয় মেধায়। বিদ্যার চর্চা করো। তোমরাও মেধাবী হতে পারবে নিশ্চয়। পাহাড়ের চিপায় বসে আমরা দামী ড্রেসের যতটা দাম দিই, সম্মান দিই, আকৃষ্ট হই বাইরে জগতে বোধহয় ততটা না! গেলো ভ্রমণে দিল্লীর রিজার্ভেশন সেন্টারে দেখেছিলাম এক সাদা বিদেশী নিজের ছেঁড়া পরিহিত কাপড় নিজ হাতে সেলাই করছে। আরেক মঙ্গোলীয় বিদেশী সাধারণ একটা টি শার্ট পরে সুন্দর ছবি স্কেচ করছে। কই কেউই তো ড্রেস নিয়ে তাদের অসম্মান করলো না। বরং মঙ্গোলীয়টার ছবি দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি।

আর আমরা তো পড়ালেখার জন্য শুধু ঢাকা, রাজশাহী, চিটাগাং চিনি। কিন্তু দিন বদলেছে। শুধু ঢাকা চিটাগাং পর্যন্ত চিন্তা না করে দিল্লী, লন্ডন, নিউইয়র্ক, টোকিও পর্যন্ত চিন্তা করতে করতে শেখো। স্বপ্ন দেখো।

সব মিলে পৃথিবীতে দুইশ এর অধিক দেশ আছে অথচ আমরা পরে আছি একটা পাহাড়ের চিপায়। আমার ভ্রমণে খুব শখ ছিলো! প্রায়ই ভাবতাম, এত দেশ থাকতে আমি কি ভারতও ভ্রমণ করতে পারব না? মানুষ বিমানে চড়ে বিদেশ পাড়ি দেয় আমি পারবো না কেন? কিন্তু আমার যে গরীব ইনকাম তা দিয়ে এটা সহজ নয়! তবু চেষ্টা করলাম। অবশেষে ঘুরে আসলাম। এটুকু ভ্রমণেই আমি পৃথিবীর বিশালতা খুঁজে পেয়েছি। ইচ্ছে করছে তোমাদের মত বয়সে ফিরে গিয়ে আবারো শুরু করি যেন পাহাড়ের চিপা থেকে বের হয়ে পৃথিবী ঘুরতে পারি, মঙ্গলে যেতে পারি। শুধু দেশের নাম আর রাজধানী মুখস্থ না করে, শুধু পৃথিবীর মানচিত্র মুখস্থ না করে এখন থেকে প্রতিজ্ঞা করো যে আমি পাহাড়ের চিপা থেকে বেরোবোই! বিশ্বকে দেখবোই।

নিজেকে সেভাবেই গড়ে তোলো যেভাবেই গড়ে তুললে পৃথিবীর বড় বড় প্রতিষ্ঠানগুলো তোমায় ডাকবে। নাসা, অক্সফোর্ড, ইউএন, ফেসবুক ইত্যাদি থেকে। আমি পারি নি, তোমরা পারবে। মনে রাখবে পৃথিবীতে যোগ্য মানুষদের বসে থাকার সময় নেই। তুমি যদি বসে থাকো তাহলে ভাববে তুমি এতটা মেধাবী নও, এতটা ক্রীয়েটিভ নও, এতটা পরিশ্রমী নও! কাজেই নিজেকে প্রস্তুত করো। পরিশ্রমী হলে, ক্রীয়েটিভ হলে দারিদ্রতাও হার মানে! কাজেই দারিদ্রতার দোহাই দিয়ে বসে থেকো না।

আর ড্রাগের কথা বলি। তোমাদের এই বয়সটাই নেশার বয়স। আমি যেখানেই গিয়েছি সেখানেই জুম্ম ছেলেদের নেশা করতে দেখেছি। এসব এড়িয়ে চলার জন্য নিজেকে সব সময় পড়াশুনা বা কুশল কাজে ব্যস্থ রাখো। কেউ নেশার অফার করলে নিজের স্বপ্নের কথা আগে ভাবো। স্বপ্নকে মরতে দিও না। অনেক জুম্ম ছেলেকে বলতে শুনি, মদ হায় বিলিনেই হি মানুষ মনিচ্চোর ন অইদি? হয়তো হয়। তবে তারা হয়তো বেশিদূর পর্যন্ত যেতে পারে না। গতানুগতিক সীমা অতিক্রম করতে পারে না। তাছাড়া নেশার শারীরিক ক্ষতিটাও মাথায় রাখা উচিত। বাবা মদ খায় বলে আমিও খাবো তা-তো নয়! মদ খেয়ে সফল হওয়ার চেয়ে অধঃপতনে যাওয়ার নজিরটাই বেশি।

তোদের ফেয়ার ওয়েলে থাকতে পারলাম না। মিস করছি খুব। সবাই ভালো থেকো।

বি.দ্রঃ Rubel Sharma sr, Gaya Ckm mm, Lucky Chakma mm, সম্ভব হলে প্রিয় শিক্ষার্থীদের আমার কথা বলবেন।

  • লেখক: জর্জ দর্শন চাকমা, সহ. শিক্ষক, টিউফা আইডিয়াল স্কুল, খাগড়াছড়ি।
Facebook Comments

বৌদ্ধদের আরো তথ্য ও সংবাদ পেতে হলে আমাদের ফেসবুক ফ্যান পেইজে লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন।: www.facebook.com/buddhisttimes

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ। দি বুড্ডিস্ট টাইমস এর সাথে লেখ-লেখিতে যুক্ত হতে চাইলে ব্যবহার বিধি ও নীতিমালা পড়ুন অথবা নিবন্ধন করুন
এখানে।
এক্সিকিউটিভ এডিটর । দি বুড্ডিস্ট টাইমস ডটকম
http://www.thebuddhisttimes.com

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ।

Leave a Comment

error: অনুগ্রহ করে কপি/পেস্ট মনোভাব পরিহার করি নিজে লেখার যোগ্যতা অর্জন করুন।