Apr 22, 2016
37 Views
0 0

নীচ ধর্মের অনুসরণ করো না; প্রমাদ ও মিথ্যাদৃষ্টি থেকে নিজেকে মুক্ত করো

লিখেছেন:

3092148034_cecc40c82d_zযদিও আজ সমাজে সংঘকে (বৌদ্ধ ভিক্ষু)সম্মান করা হয় কিন্তু এও দেখা যায় যে বৌদ্ধ গৃহস্থরা তাদের অসম্মানও করে। সংঘের নিন্দা করে আবার যখন ব্যক্তিগত সুখ-সুবিধার দরকার পড়ে তখন তাদের কাছে যায়, আমন্ত্রণ (ফাং) করে, তাদের দিয়ে পূজা, দান, জ্ঞাতির-মাতা-পিতার শ্রাদ্ধ ইত্যাদি করায়।

বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দেখি ভিক্ষুদের পেছনে রেখে গৃহস্থরা সামনের আসন  কিভাবে অলংকৃত করে। বেরিয়ে যাওয়ার সময় কিভাবে ভিক্ষুদের পেছনে ঠেলে আগে বেরিয়ে যায়, বিহারের অবস্থানরত ভিক্ষুর সাথে নিত্য কিভাবে অচদাচরণ করে,অসম্মান করে। মুক্তমনার নামে বুদ্ধ, ধর্ম ও সংঘ নিয়ে ফেইসবুক, ব্লগ, ওয়েব সাইটে বিকৃত চিন্তার কু-যুক্তি উপস্থাপন করে; যদিও সে নিজেকে বৌদ্ধ বলে, দাবী করে নিজেকে উপাসক বা দায়ক। এ রকম আচরণে নিজেকে বৌদ্ধ বলার অধিকার কী করে হয়?

কেউ বলতে পারে যে ভিক্ষুদের আচরণ আমাদের আচরণ থেকেও নীচ। কিন্তু সে নিজে কখনও অন্তর্মুখী হয়ে নিজের আচরণকে কখনও দেখেনি। যদি সামান্যও দেখত তাহলে এ রকম ব্যবহার করত না আর নিন্দাও করত না।

মুক্তমনা পরিচয়ে এখন এখানে-সেখানে বৌদ্ধধর্ম নিয়ে যে কু-যুক্তি প্রচার-প্রসার করা হচ্ছে তা দ্বারা ভবিষ্যতে এমন একটা সার্কেল (গুটি কয়েক জন মিলে এক প্রকার সমাজ) সৃষ্টি হবে; যারা সে সময় নিজের কু-যুক্তি দ্বারা অধর্মকে ধর্ম আর ধর্মকে অধর্ম হিসাবে প্রচার করবে।

আমাদের বোঝা উচিৎ যে ভিক্ষু হওয়ার মাত্রই ব্যক্তি তৎক্ষণাৎ সুশীল বা ক্লেশরহিত হয়ে যায় না। সে সেই প্রক্রিয়ায় সে প্রবেশ করেছে মাত্র। যে সাংসারিক সুখকে তোমরা গৃহস্থরা সুখ বলে মেনেছ তাকে তো সে অন্তত ত্যাগ করার সাহস করেছে। এটা কি কম নাকি? ভিক্ষু এই সামান্য গুণের জন্যও তো একজন বৌদ্ধ গৃহস্থের সন্তুষ্ট হওয়া উচিত ছিল।

অন্যদিকে আপনি যে ভিক্ষুর নিন্দা করছেন, আপনি তার কতটা সেবা করেছেন, কতটা শ্রদ্ধা জানিয়েছেন তা কি আপনি নিজে বিচার করেছেন? শুধুমাত্র অমুক আচরণ করতে দেখেছি বলে আপনি তার নিন্দা করতে পারেন না। আপনি যখন তাকে কিছু শ্রদ্ধা বা সেবা করলেনই না কীভাবে আপনি তার নিন্দা করতে পারেন? যদি তাকে এবং আপনাকে একজায়গায় দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয় তাহলে হাজার হাজার মানুষ তার দিকে শ্রদ্ধার দৃষ্টিতে তাকাবে। আপনাকে কেউ দেখবে না। যদিও লোকেরা তার চরিত্র না জেনেই তা করে কিন্তু শ্রদ্ধা করার লোক তো আছে। এটা কি কম কথা যে সে বহুলোকের শ্রদ্ধা উদ্রেককারী হয়ে উঠেছে। এই গুণ তো তার মধ্যে আছে যা আপনার মধ্যে নেই। তবে হ্যাঁ, তার ব্যক্তিগত আচরণ সে বুঝবে, সে তা ভোগ করুক। কিন্তু তার মানে কখনওই এই নয় যে ভিক্ষু চরিত্রহীন বা আরণহীন জীবন কাটায়।

একথা বলার মানে এও নয় যে নীচ আচরণকারী ভিক্ষুও শ্রেষ্ঠ। যখন কেউ ভিক্ষু হয় তখন সেই রকম চেষ্টাও তার করা উচিত অন্যথায় চীবর ছেড়ে গৃহস্থ হয়ে থাকাই উচিত হবে। ভিক্ষুকে সমসময় দেখতে হবে সে যেন নীচ কর্ম থেকে দূরে থাকে। অপ্রমাদ অর্থাৎ স্মৃতি এবং সতর্কতা যেন বজায় থাকে। সমস্ত দৈহিক, মৌখিক ও মানসিক গতিবিধিকে দেখতে হবে। সঠিক শাস্ত্রের অধ্যায়ন করে, মিথ্যা ধারনা ত্যাগ করে, সাংসারিক বস্তুর প্রতি বৈরাগ্য, বিরক্তির উদ্রেক করে, তৃষ্ণা ত্যাগ করে, ক্লেশহীন হয়ে জন্ম-মৃত্যুর শৃঙ্খলাকে ভাঙতে হবে। তার জন্যই আমি ভিক্ষু হয়েছি। জীবন কাটানো বা জীবনযাপনের জন্য ভিক্ষু হওয়ার চাইতে ব্যবসা ইত্যাদি করা ভাল। কেননা সংসার এবং নির্বাণ যে আছে তোমার তো সেই জ্ঞানও নেই। এ রকম জীবনকে তুমি সব কিছু মনে করে বসে আছে। এমনই যদি হয় তবে ভিক্ষু হওয়ার দরকারই নেই। সেই ব্যক্তিরই ভিক্ষু হওয়া উচিত যে ভাবতে পরবে যে সংসার দুঃখের আস্তানা, আমাকে এখান থেকে পরিত্রাণ পেতে হবে। যার মনে এ চিন্তা আসবে, সাংসারিক বস্তু তাকে বেঁধে রাখতে পারবে না।

এক নব দীক্ষিত ভিক্ষু ও মহা উপাসিকা বিশাখার কন্যার ঝগড়া করতে দেখে তাই বুদ্ধ ভগবান বিশাখাকে বলেছিলেন,

হীনং ধম্মং ন সেবেয্য পমাদেন ন সংবসে।

মিচ্ছাদিটঠিং ন সেবেয্য ন সিয়া লোকবডঢনো।।

অর্থাৎ নীচ ধর্মের অনুসরণ করবে না, প্রমাদে থাকবে না, ধারনায় মিথ্যাদৃষ্টি রাখবে না, সংসারে আসা-যাওয়ার প্রক্রিয়াকে বাড়তে দিয়ো না।

Facebook Comments

বৌদ্ধদের আরো তথ্য ও সংবাদ পেতে হলে আমাদের ফেসবুক ফ্যান পেইজে লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন।: www.facebook.com/buddhisttimes

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ। দি বুড্ডিস্ট টাইমস এর সাথে লেখ-লেখিতে যুক্ত হতে চাইলে ব্যবহার বিধি ও নীতিমালা পড়ুন অথবা নিবন্ধন করুন
এখানে।
এক্সিকিউটিভ এডিটর । দি বুড্ডিস্ট টাইমস ডটকম
http://www.thebuddhisttimes.com

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ।

Leave a Comment

error: অনুগ্রহ করে কপি/পেস্ট মনোভাব পরিহার করি নিজে লেখার যোগ্যতা অর্জন করুন।