বৌদ্ধ ইতিহাসের চমকপ্রদ গুহা

Smiley face

Phraya-Nakhon-Caveফ্রায়া নাখোন গুহা, থাইল্যান্ডঃ থাইল্যান্ডের খাও সাম রয় ইয়োট ন্যাশনাল পার্কে এই অসাধারণ চমৎকার গুহার অবস্থান। চুনাপাথরের পাহাড় কেটে তৈরি করা হয়েছে এই গুহা। গুহার ছাদ ধ্বসে প্রকৃতিগতভাবেই ফাকা অংশ তৈরি হয়েছে যার মধ্য দিয়ে সূর্যের আলো প্রবেশ করে পুরো গুহাকে আলোকিত করে দেয়। রাজারা এখানে প্রায়ই বেড়াতে যান এর অভূতপূর্ব সৌন্দর্য্যের স্বাদ নিতে। গুহাটিতে তাই যোগ হয়েছে রয়েল ভ্যালু। গুহার ভেতরে কুহা কারুহাস প্যাভিলিয়ন নির্মিত হয় ১৮৯০ সালে রাজা চুলালংকর্ণ গুহা দর্শনে আসবেন বলে। এরপর অনেক রাজাই এটি দেখতে এসেছেন আর গুহার দেয়ালে রেখে গেছেন তাদের স্বাক্ষর। গুহার ভেতরের বাতাসেই যেন ভেসে বেড়ায় আভিজাত্য আর ঐতিহ্য।

kyaut_sae_caveকিয়ট সাএ গুহা, মায়ানমারঃ মায়ানমারের এই শান্ত, রহস্যময় গুহাটির অভ্যন্তরে স্থাপিত আছে একটি বৌদ্ধ মন্দির। ত্যোদশ শতাব্দীতে গুহাটি ব্যবহৃত হত মঙ্গোলদের আক্রমণ থেকে রক্ষার জন্য লুকিয়ে থাকার স্থান হিসেবে। কিন্তু এর ব্যবহার বিভিন্ন উদ্দেশ্যে হয়ে থাকে। ক্লিফের পাশে আছে একটি মন্দির যা মূলত গুহার প্রবেশ দ্বার। ভিক্ষুরা এই জায়গাটিকে ধ্যানের জন্য ব্যবহার করেন। সুন্দর শান্তিময় গুহাটিতে সময় যেন থমকে আছে। যদিও পর্যটকরা এখানে আসতে পারেন, তবে খুব কম সংখ্যার মানুষকেই এই অনুমতি দেওয়া হয়। এটাই অবশ্য গুহার পরিবেশ বজায় রাখতে সাহায্য করছে।

মোগাও গ্রটোস, চীনঃ মোগাও গ্রটোস বা মোগাও গুহাকে বলা হয় হাজার বুদ্ধের গুহা। দুনহাং গুহা এখানকার সবচেয়ে প্রত্নতাত্ত্বিক অর্থে মূল্যবাণ গুহা। বৌদ্ধ চিত্রকর্মের বিশাল ভান্ডার পাওয়া যায় এখানে। খনন করে আবিষ্কৃত হয়েছে ১ হাজারেরও বেশী মন্দির, যার মধ্যে সবচেয়ে প্রচীনটি নির্মিত হয় ৩৬৬ অব্ধে। এখনও ৪৯২ টি মন্দিরের অস্তিত্ব আছে এবং তাদের স্থাপত্য ও ভাস্কর্য্যগুলো সংরক্ষিত হচ্ছে যত্নের সাথে। মন্দিরগুলোয় রং করা স্থাপত্যের সংখ্যা ২ হাজারেরও বেশী। গুহাগুলো ৫০,০০০ ধর্মগ্রন্থ, নথিপত্র, টেক্সটাইল এবং অন্যান্য ঐতিহাসিক ও ধর্মীয় ধ্বংসাবশেষের আর্কাইভ।

Facebook Comments

বৌদ্ধদের আরো তথ্য ও সংবাদ পেতে হলে আমাদের ফেসবুক ফ্যান পেইজে লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন।: www.facebook.com/buddhisttimes

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ। দি বুড্ডিস্ট টাইমস এর সাথে লেখ-লেখিতে যুক্ত হতে চাইলে ব্যবহার বিধি ও নীতিমালা পড়ুন অথবা নিবন্ধন করুন
এখানে।

Recommended For You

Leave a Reply

error: অনুগ্রহ করে কপি/পেস্ট মনোভাব পরিহার করি নিজে লেখার যোগ্যতা অর্জন করুন।