Nov 14, 2016
50 Views
0 0

রামু সহিংসতা: চার্জসীটভুক্ত আসামী বাদ দিতে ভিক্ষুর সুপারিশ!

লিখেছেন:

ramu_times_bd২০১২ সালে ২৯ সেপ্টেম্বর কক্সবাজার জেলার রামুর বৌদ্ধ বিহারে হামলা, ভাংচুর, লুপাট ও অগ্নিসংযোগের মাধ্যমে বৌদ্ধ ইতিহাস-ঐতিহ্য ধ্বসের সাথে দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার চার্জসীটভুক্ত আসামীকে বাদ দেয়ার জন্য জনৈক বৌদ্ধ ভিক্ষুর সুপারিশের খরব পাওয়া গেছে।

জেলার অনলাইন নিউজ পোর্টাল কক্সবাজারনিউজ-ডট-কম এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ধর্মগুরু বৌদ্ধ ভিক্ষুকে ভুল বুঝিয়ে একটি মহল চার্জসীটভুক্ত মামলা থেকে অব্যাহতি পাওয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। যার ফলে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তাও অনেকটা বিব্রতকর অবস্থা পড়ছে বলে নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সুত্র জানিয়েছেন।

বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যে সচেতন মহলকে ভাবিয়ে তুলেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘটনার সাথে যারাই জড়িত থাকুক তাদের বিরুদ্ধে শাস্তি হওয়ার একান্ত দরকার বলে মনে করেন রামুর মুসলিম সম্প্রদায় থেকে শুরু করে সকল ধর্মের লোকজন। তাছাড়া আওয়ামী লীগ, বিএনপি , জামায়াতসহ সামাজিক সংগঠন ও সচেতন মহলের একমাত্র দাবী এঘটনার সাথে যেই রাজনৈতিক দলের লোকজন জড়িত হোক না কেন তাদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি হওয়া উচিত।

রামুর বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের যুবক উত্তম বড়ূয়ার ফেইসবুকে পবিত্র কোরআন আবমাননার গুজবে ২০১২ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর রাতে সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে একদল দূর্বৃত্ত মিছিল সহকারে হামলা চালিয়ে অগ্নিসংযোগ এবং লুটপাট করা হয় বৌদ্ধ বিহার ও বসতিতে।

পরদিন ৩০ সেপ্টেম্বর হামলা চালায় উখিয়া ও টেকনাফের বৌদ্ধ বিহার ও বসতির উপর। ওই সময় হামলা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ চালানো হয় রামুর ১২টি, উখিয়ায় ৫টি ও টেকনাফে ২টি বৌদ্ধ বিহার এবং শতাধিক বসত বাড়ীতে। লুট করা হয় প্রাচীন ও দূর্লভ বুদ্ধ মূর্তি, ধাতু।

এ ঘটনা নিয়ে রামু, উখিয়া, টেকনাফ ও কক্সবাজার সদর থানায় দায়ের করা ১৯ টি মামলা। এর মধ্যে একটি মামলা বাদির সাথে আপোষ করে আদালত থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। অপর মামলার সাক্ষী গ্রহণ শুরু হলেও সাক্ষীরা আদালতে সাক্ষী দিতে ভয় পাচ্ছেন। তাদের দাবি সাক্ষ্য প্রদানের ক্ষেত্রে হুমকি দেয়া হচ্ছে।

সরকার পক্ষের আইনজীবীও স্বীকার করেছে নানা কারণে মামলার সাক্ষীরা সাক্ষ্য না দেয়ায় আপাতত মামলার সাক্ষী গ্রহণ বন্ধ রাখা হয়েছে। সরকার পক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে এসব মামলা পুলিশের পিবিআই এর অধিনে অধিকতর তদন্ত হচ্ছে।

সে সুবাদে ধর্মগুরু বৌদ্ধ ভিক্ষুকে ভুল বুঝিয়ে একটি মহল চার্জসীটভুক্ত মামলা থেকে অব্যাহতি পাওয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। যার ফলে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তাও অনেকটা বিব্রতকর অবস্থা পড়ছে বলে নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সুত্র জানিয়েছেন।

Facebook Comments

বৌদ্ধদের আরো তথ্য ও সংবাদ পেতে হলে আমাদের ফেসবুক ফ্যান পেইজে লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন।: www.facebook.com/buddhisttimes

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ। দি বুড্ডিস্ট টাইমস এর সাথে লেখ-লেখিতে যুক্ত হতে চাইলে ব্যবহার বিধি ও নীতিমালা পড়ুন অথবা নিবন্ধন করুন
এখানে।
এক্সিকিউটিভ এডিটর । দি বুড্ডিস্ট টাইমস ডটকম
http://www.thebuddhisttimes.com

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ।

Leave a Comment

error: অনুগ্রহ করে কপি/পেস্ট মনোভাব পরিহার করি নিজে লেখার যোগ্যতা অর্জন করুন।