শীলের গুরুত্ব ও পঞ্চশীল প্রার্থনা

Smiley face

‘শীল’ শব্দের অর্থ স্বভাব বা চরিত্র। আসলে শীল মানে সদাচার কিংবা সংযম। বিশেষ অর্থে নিয়মনীতিকেও বোঝায়। শীলের অনুশীলন ছাড়া চরিত্র গঠন করা যায় না। বৌদ্ধ দৃষ্টিকোণে বিচার করলে এ নিয়মনীতির অভ্যাস বা চর্চার নামই শীল। সুনীতির অনুশীলনে কায়, বাক্য ও মন পরিশুদ্ধ থাকে। স্বভাব সুন্দর হয়। রাগ প্রশমিত হয়। বিদ্বেষভাব থাকে না। মোহে আচ্ছন্ন থাকে না। হিংসা উৎপন্ন হয় না। পরিবারে শান্তি বিরাজ করে। এজন্য শীল পালনকালীকে শীলবান বলা হয়।

ত্রিপিটকে বিভিন্ন প্রকার শীলের কথা আছে। তন্মধ্যে পঞ্চশীল, অষ্টশীল, দশশীল, ভিক্ষুশীল অন্যতম। গৃহী বা সংসারী বৌদ্ধরা পঞ্চশীল পালন করে থাকে। তারা অষ্টমী, অমাবস্যা ও পূর্ণিমায় অস্টশীলও পালন করে। শ্রামণেরা দশশীল পালন করে থাকেন। ভিক্ষুরা ভিক্ষুশীলের ব্রত সম্পন্ন করেন। গৃহীরা সবসময় পঞ্চশীল পালনে সচেষ্ট থাকে।

panchashila-times

শীল গ্রহণের কিছু নিয়ম আছে। প্রথমে মুখ, হাত, পা ভাল করে ধুয়ে নেবে। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন কাপড় পরবে। চুর আঁচড়ে নেবে। বিহারে গিয়ে ভিক্ষুর কাছে পঞ্চশীল প্রার্থনা করবে। বিহার দূরে থাকলে নিজের ঘরেও বুদ্ধমূর্তির সামনে পঞ্চশীল গ্রহণ করা যায়। ভিক্ষুকে ‘ভন্তে’ বলে সম্বোধন করে দুহাত জোড় করে নতজানু হয়ে  প্রথমে ভিক্ষুকে বন্দনা করে এরপর পঞ্চশীল প্রার্থনা করতে হয়:

পঞ্চশীল প্রার্থনা:

ওকাস, অহং ভন্তে তিসরণেনসহ পঞ্চসীলং ধম্মং যচামি, অনুগগহং কত্বা সীলং দেথ মে ভন্তে।

দুতিযম্পি অহং ভন্তে তিসরণেনসহ পঞ্চসীলং ধম্মং যচামি, অনুগগহং কত্বা সীলং দেথ মে ভন্তে।

ততিযম্পি অহং ভন্তে তিরনণেনসহ পঞ্চসীলং ধম্মং যচামি, অনুগগহং কত্বা সীলং দেথ মে ভন্তে।

পালিতে পঞ্চশীল প্রার্থনার  বাংলা অনুবাদ:

ভন্তে, অবকাশ প্রদান করুন। আমি ত্রিশরণসহ পঞ্চশীল প্রার্থনা করছি। অনুগ্রহ করে আমাকে শীল প্রদান করুন।

দ্বিতীয়বারও ভন্তে, আমি ত্রিশরণসহ পঞ্চশীল প্রার্থনা করছি। অনুগ্রহ করে আমাকে শীল প্রদান করুন।

তৃতীয়বারও ভন্তে, আমি ত্রিশরণসহ পঞ্চশীল প্রার্থনা করছি। অনুগ্রহ করে আমাকে শীল প্রদান করুন।

পঞ্চশীল প্রার্থনা শেষ হলো।

এখন ভন্তে বলবেন- যমহং বদামি তং বদেথ-আমি যা বলছি তা বল।

প্রার্থানাকারী বলবে: আম ভন্তে-ভন্তে, হাঁ বলছি।

ভিক্ষু এখন পঞ্চশীল প্রদান শুরু করবেন। ভন্তে একটি একটি করে পাঁচটি শীল উচ্চারণ করবেন। তোমরা পরপর বলবে।

পঞ্চশীল

১. পাণাতিপাতা বেরমনী সিক্খাপদং সমাদিযামি।

২. অদিন্নাদানা বেরমণী সিক্খাপদং সমাদিযামি।

৩. কামেসু মিচ্ছারানা বেরমণী সিক্খাপদং সমাদিযামি।

৪. মুসাবাদা বেরমণী সিক্খাপদং সমাদিযামি।

৫. সুরামেরেয মজ্জপমাদটঠনা বেরমণী সিক্খাপদং সমাদিযামি।

পঞ্চশীলের বাংলা অনুবাদ :

১. প্রাণী হত্যা করা থেকে বিরত থাকার শিক্ষাপদ গ্রহণ করছি।

২. অদত্ত বন্তু (যা দেওয়া হয়নি) গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকার শিক্ষাপদ গ্রহণ করছি।

৩. মিথ্যা কামাচার থেকে বিরত থাকার শিক্ষাপদ গ্রহণ করছি।

৪. মিথ্যাকথা বলা থেকে বিরত থাকার শিক্ষাপদ গ্রহণ করছি।

৫. নেশাদ্রব্য সেবন করা থেকে বিরত থাকার শিক্ষাপদ গ্রহণ করছি।

পঞ্চশীল প্রদান করার পর ভন্তে বলবেন, ত্রিশরণসহ পঞ্চশীল প্রদান করা হলো। শ্রদ্ধার সাথে মনোযোগ সহকালে শীল পালন করবে। প্রার্থাকারীরা একসাথে সাধু, সাধু, সাধু বলে তিনবার সাধুবাদ দেবে। নতজানু হয়ে আবার বন্দনা করে পঞ্চশীল গ্রহণ শেষ করবে। সকাল-বিকাল দুইবেলা পঞ্চশীল গ্রহণ করবে। সযত্নে পঞ্চশীল পালন করবে।

শীলের উপকারিতা: শীল মানব জীবন গঠনের ভিত্তি স্বরূপ। ব্যক্তিজীবন প্রতিষ্ঠার শ্রেষ্ঠ উপাদান। প্রব্রজিত হোক কিংবা গৃহী হোক প্রত্যেকে শীল পালন করা একান্ত কর্তব্য। সবাই সুখ আকাঙ্ক্ষা করে। শীলের মাধ্যমেই সুখ লাভ করা যায়। যে যত বেশি নিখুঁতভাবে শীল পালন করেন, তিনি তত বেশি সুখ লাভ করেন। শীলবান ব্যক্তিরা ক্ষমাশীল। তাঁরা দুষ্কর্ম করেন না। শীল লঙ্ঘনকারীরা পাপ-পুণ্য, ভালো-মন্ত, ধর্ম-অধর্ম জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। সৎকর্ম ছাড়া আত্নমুক্তি সম্ভব নয়। শীল মানুষের জীবনকে সুন্দর ও সুশৃঙ্খল করে। সবাই তাঁদের প্রশংসা করেন। তাঁরা যশ-কীর্তির অধিকারী হন। সুতরাং বিশুদ্ধভাবে শীল পালন করার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে।

শীলের সুফল: যাঁরা পঞ্চশীল পালন করেন তাঁরা ভোগ-সম্পত্তির উত্তরাধিকারী হন। সকলে তাঁদের প্রশংসা করেন। স্বর্গে গমন করেন। তাঁরা নির্ভয়ে ও নিঃসংকোচে সজ্ঞানে মৃত্যুবরণ করেন। নির্ভয়ে সর্বত্র বিচরণ করেন। শীলাচরণ ছাড়া পাপ-মল বিশুদ্ধ হয় না। শীলবানের সুগন্ধি বায়ুর অনুকূলে ও প্রতিকূলে প্রবাহিত হয়। শীল নির্বাণলাভের সোপান বা সিঁড়ি। সকল নীতির মধ্যে শীলই উত্তম নীতি। তাই শীল পালন অত্যন্ত প্রয়োজন।  প্রত্যেকে পঞ্চশীল পালন উচিত। এতে মানুষের মন সংযত থাকবে। পঞ্চশীল পালনের দ্বারা চরিত্রবান হিসেবে নিজেকে গড়ে তোলা যায়। বলতে গেলে, নৈতিক গুণে গুণান্বিত হয় সুকুমার বৃত্তির বিকাশ ঘটে।

Facebook Comments

বৌদ্ধদের আরো তথ্য ও সংবাদ পেতে হলে আমাদের ফেসবুক ফ্যান পেইজে লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন।: www.facebook.com/buddhisttimes

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ। দি বুড্ডিস্ট টাইমস এর সাথে লেখ-লেখিতে যুক্ত হতে চাইলে ব্যবহার বিধি ও নীতিমালা পড়ুন অথবা নিবন্ধন করুন
এখানে।

Short URL: http://thebuddhisttimes.com/?p=2097

ধম্মবিরীয় ভিক্ষু Posted by on Jun 26 2016. Filed under জীবন চর্চা, বন্দনা, বৌদ্ধধর্ম. You can follow any responses to this entry through the RSS 2.0. You can leave a response or trackback to this entry

You must be logged in to post a comment Login

Smiley face

সর্বশেষ টাইমস

Recent Posts: NivvanaTV covering Buddhist and Buddhist community in World, with weekly news, views, entertainment, and programs for all age.

রাঙ্গামাটিতে পাহাড় ধ্বসে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান

রাঙ্গামাটিতে পাহাড় ধ্বসে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান

সুপ্রিয় চাকমা শুভ,রাঙামাটি সাম্প্রতিক পাহাড় ধস ও প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থ রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ৬০টি পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দিয়েছে বিদেশী দাতা সংস্থা দি স্যালভেশন আর্মী বাংলাদেশ। শুক্রবার (১৯ জানুয়ারী) সকালে বিলাইছড়ি উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য রেমলিয়ানা পাংখোয়া প্রধান অতিথি হিসাবে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যদের মাঝে আর্থিক সহায়তা বিতরণ করেন। […]

Photo Gallery

Top Downloads

Icon

The Buddhist Times Android apps 46.21 KB 54 downloads

...
Icon

অভিধর্ম্মার্থ সংগ্রহ 1.65 MB 1 downloads

গ্রন্থের নামানুসারে ইহা একটি অর্থ-সংগ্রহ...
Developed by Dhammabiriya
error: অনুগ্রহ করে কপি/পেস্ট মনোভাব পরিহার করি নিজে লেখার যোগ্যতা অর্জন করুন।