Sep 24, 2016
22 Views
0 0

শেষ ২টি বুদ্ধ মূর্তিও হারানো শঙ্কায় বরগুনার রাখাইন বৌদ্ধরা

লিখেছেন:

এক সময়ে বরগুনার তালতলী উপজেলার প্রতিটি রাখাইন পাড়ায় কষ্টি পাথর, স্বেত পাথরসহ বিভিন্ন মূল্যবান পাথরের একাধিক বুদ্ধ মূর্তি থাকলেও বর্তমানে তা গল্পমাত্র। কারণ পাচারকারীদের অপতৎপরতায় একের পর এক চুরি হয়ে যাচ্ছে রাখাইন পাড়াগুলোর বৌদ্ধ মূর্তি।

বর্তমানে পুরো উপজেলায় রাখাইনদের এ প্রাচীন স্মৃতি ধরে রেখেছে মাত্র দুটি মূর্তি। তবে বর্তমানে দুটি প্যাগোডায় থাকা মূর্তি চুরির শঙ্কায় দিনা কাটাচ্ছেন রাখাইনরা। তারা বলছেন, প্যাগোডাগুলোর দরজা জানালার অবস্থা খুবই নাজুক। তাই যে কোনো সময় চুরি হয়ে যেতে পারে প্যাগোডার মূর্তি দুটি।

buddha_barguna

সম্প্রতি এক অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যায়, ১৭শ সালের শেষের দিকে মায়ানমার থেকে আসা রাখাইনরা তাদের উপাসনার জন্য আরাকানের মেঘাবতীর সান্ধ্যে জিলার ছেং ডোয়ে, রেমেত্রে, মেং অং অঞ্চল হতে নিয়ে আসেন বিভিন্ন পাথরের একাধিক মূল্যবান মূর্তি। আর তখন তালতলীর এ উপজেলার বিভিন্ন পারায় মূর্তিগুলো রাখার জন্য তৈরি করেন একাধিক প্যাগোডা।

কালের বিবর্তনে বিভিন্ন কুচক্রি মহলের চাপে শুধু রাখাইন সম্প্রদায়ই গুটিয়ে আসেনি, পাচারকারীদের হাতে ধ্বংস প্রায় তাদের ধর্মীয় উপসনালয় প্যাগোডার স্মৃতি চিহ্নগুলো। বর্তমানে প্রাচীন মূর্তির মধ্যে ঠাকুর পাড়া নামের একটি রাখাইন পাড়ায় একটি সাধারণ পাথর ও একটি সেত পাথরের মূর্তিই তাদের ধর্মীয় উপসনার একমাত্র সম্বল। তবে দিন দিন রাখাইন সম্প্রদায়ের সংখ্যা কমে যাওয়ায় ও কিছু কুচক্রি মহলের অপতৎপরতা বেরে যাওয়ায় তাদের কাছে থাকা বাকি মূর্তি দুটিও চুরি হবার আতঙ্কে দিন পার করছেন তারা।

রাখাইন পাড়ার একাধিক রাখাইন প্রতিবেদনে জানিয়েছেন, তালতলীতে আসার পর তারা তাঁত শিল্প ও কৃষি কাজের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করত। তখন তারা শান্তিতে ছিল। নির্ভয়ে নিরাপদে তাদের ধর্ম পালন করত। তবে এখন স্থানীয় কিছু প্রভাবশালীদের দ্বারা অত্যাচারিত হয়ে আসছেন তারা। তালতলীর রাখাইন পাড়ার সংখ্যা ছিল ৫৬টি আর প্রত্যেকটি পাড়ায় ছিল তাদের ধর্মীয় উপসানলয়। তখন সব কটি প্যাগোডায় ছিল শ্বেত পাথর, কষ্টি পাথরসহ বিভিন্ন পাথরের মূল্যবান মূর্তি। তবে দিনের পর দিন প্রশাসনিক দুর্বলতার কারণে কিছু কুচক্রি মহলের লোকজন মূল্যবান এ মূর্তি চুরি করে তুলে দিচ্ছেন পাচারকারীদের হাতে।

আদিবাসি কল্যাণ ও উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি মং এ্যা খ্যাং মং মং জানিয়েছেন, ‘প্যাগোডায় থাকা মূর্তিগুলো তাদের কাছে টাকার দিক থেকে মুল্যবান নয়, তারা তাদের ধর্মীয় উপসনালয়ে থাকা তাদের এ মূর্তি দুটি যদি রক্ষা করতে না পারে তবে তাদের আর ধর্মীয় রীতি নীতি পালন করার কোনো উপায় থাকবে না। তারা বিভিন্ন দিক থেকে চাপের মুখে রয়েছেন। তবে তারা স্থানীয়ভাবে মূর্তি দুটি চুরির হাত থেকে রক্ষা করতে সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন।’

Facebook Comments

বৌদ্ধদের আরো তথ্য ও সংবাদ পেতে হলে আমাদের ফেসবুক ফ্যান পেইজে লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন।: www.facebook.com/buddhisttimes

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ। দি বুড্ডিস্ট টাইমস এর সাথে লেখ-লেখিতে যুক্ত হতে চাইলে ব্যবহার বিধি ও নীতিমালা পড়ুন অথবা নিবন্ধন করুন
এখানে।
এক্সিকিউটিভ এডিটর । দি বুড্ডিস্ট টাইমস ডটকম
http://www.thebuddhisttimes.com

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ।

Leave a Comment

error: অনুগ্রহ করে কপি/পেস্ট মনোভাব পরিহার করি নিজে লেখার যোগ্যতা অর্জন করুন।