Nov 22, 2016
25 Views
0 0

সারীপুত্র মহাস্থবিরের পূর্বজন্মের কাহিনী —( ২)

লিখেছেন:

সারীপুত্র মহাস্থবিরের পূর্বজন্মের কাহিনী —( ২)

বুদ্ধ-দর্শন এবং অগ্রশ্রাবকত্ব প্রার্থনা

ইলা মুৎসুদ্দী

 c6

তখন চন্দবতী নগরে অনোমদর্শী নামক সম্যক সম্বুদ্ধ আবির্ভূত হইয়াছিলেন। তিনি যশোবন্ত নামক ক্ষত্রিয় রাজার ঔরসে যশোধরা নামে রাজ-মহিষীর গর্ভে জন্ম গ্রহণ করিয়াছিলেন। যথা সময়ে সংসার ত্যাগ পূর্ব্বক অর্জ্জুন বোধি বৃক্ষমূলে ধ্যান করিয়া অভিসম্বোধি লাভ করিয়াছিলেন। নিসভ আর অনোম স্থবির তাঁহার অগ্রশ্রাবক ছিলেন। বরুণ স্থবির তাঁহার অক্লান্ত সেবক ছিলেন। সুন্দরা ও সুমনা অগ্রশ্রাবিকা ছিলেন। তাঁহার পরমায়ু ছিল শত সহস্র বৎসর। শরীরের উচ্চতা আটান্ন হাত ছিল; অনন্ত জ্ঞানী বুদ্ধের শরীরের জ্যোতিঃ দ্বাদশ যোজন পর্য্যন্ত ব্যাপৃত হইত। তাঁহার পরিষদে ভিক্ষু সংখ্যা এক লক্ষ ছিল।

অতঃপর এক দিবস ভগবান বুদ্ধ মহাকারুণিক সমাপত্তি ধ্যান হইতে উঠিয়া জগদ্বাসী দুঃখিত সুখিত প্রাণীদিগকে জ্ঞান চক্ষুর দ্বারা দর্শন করিতেছিলেন। দেখিতে দেখিতে সুরুচি তাপসকে তাঁহার প্রসারিত জ্ঞানজালের ভিতর দেখিতে পাইলেন। তখন লোকগুরু ভগবান ভাবিলেন- আজ যদি আমি সুরুচি তাপসের নিকট যাই, তবে মহৎ ধর্ম্ম যজ্ঞের অনুষ্ঠান হইবে। তাপস অগ্রশ্রাবকত্ব প্রার্থনা করিবে, আর তদীয় প্রিয়তম বন্ধু শ্রীবর্দ্ধন শ্রেষ্ঠী দ্বিতীয় শ্রাবকের পদ প্রার্থনা করিবে ধর্ম্মদেশনার অবসানে চুয়াত্তর হাজার তাপস অরহত্ব ফল লাভ করিবে। কাজেই আমার সেখানে যাওয়া নিতান্ত প্রয়োজন। ভগবান এইমাত্র স্থির করিয়া নিজের পাত্র-চীবর গ্রহণ পূর্ব্বক কাহাকেও না বলিয়া সিংহ সদৃশ একাকী চলিয়া গেলেন। জগত পূজ্য নরোত্তম বিবেক-কামী অনোমদর্শী বুদ্ধ গগন-পথে হিমালয়ে উপনীত হইলেন। প্রস্ফুটিত উৎপল সদৃশ জ্যোতির্ম্ময় বুদ্ধ তাপসের নয়ন গোচর হইলেন। আকাশ স্থিত চঞ্চল বিদ্যুৎ, জ্বলন্ত দীপবৃক্ষ এবং সুপুষ্পিত শালবৃক্ষ তুল্য লোকনাথ বুদ্ধের দর্শন লাভ করা বড়ই সৌভাগ্যের কথা। কিন্তু যাঁহারা সর্ব্ব দুঃখ বিনাশক, মহাবীর বুদ্ধের দর্শন লাভ করেন, তাঁহারা যাবতীয় ভব-দুঃখ হইতে ত্রাণ পাইতে পারেন। বত্রিশ প্রকার মহাপুরুষ লক্ষণ প্রতিমণ্ডিত দেবাতিদেব ভগবান বুদ্ধকে দেখিতে পাইয়া, সুরুচি তাপস চিন্তা করিতেছিলেন- ইনি কি বুদ্ধ, না বুদ্ধ নহেন; লক্ষণ শাস্ত্রে তাঁহার বিশেষ বুৎপত্তি ছিল, কাজেই পদচক্রাদি বত্রিশ প্রকার মহাপুরুষ লক্ষণ দেখিয়া মনে করিলেন- এরূপ সুলক্ষণ সম্পন্ন ব্যক্তি যদি গার্হস্থ্য আশ্রমে থাকেন, তাহা হইলে রাজ চক্রবর্ত্তী হইবেন; আর যদি অনাগারিক হইয়া থাকেন, তবে বিগত তৃষ্ণা সর্ব্বজ্ঞ বুদ্ধ হইবেন। নিশ্চয়ই ইনি বুদ্ধ। অতঃপর তাঁহার প্রতি নিঃসন্দেহ হওতঃ আগু বাড়াইয়া লইলেন এবং বসিবার স্থান সম্মার্জ্জন পূর্ব্বক আসন পাতিয়া দিলেন। বুদ্ধ আসন গ্রহণ করিলে নানাবিধ পুষ্পের দ্বারা পূজা করিলেন। সংসার সমুদ্র হইতে উত্তীর্ণ বিগততৃষ্ণ বুদ্ধকে পুষ্প পূজা করার পর অজিনচর্ম্ম একাংশ করিয়া ভক্তিভরে অভিবাদন করিলেন এবং নিজের উপযোগী নীচ আসন লইয়া বসিলেন।

তখন সুরুচি তাপসের চুয়াত্তর হাজার জটিল শিষ্য উত্তম এবং রসাল ফল সমূহ লইয়া আশ্রমে পৌঁছিয়াছিলেন। তাঁহারা সর্ব্বজ্ঞ বুদ্ধ এবং তাঁহাদের আচার্য্যরে বসিবার আসন দেখিয়া কহিলেন- আচার্য্যেেদব, আমরা মনে করিয়াছিলাম এই বিশ্ব ব্রহ্মাণ্ডে আপনার চেয়ে বড় আর কেহ বর্ত্তমান নাই; কিন্তু এখন দেখিতেছি- এই মহাপুরুষ বোধ হয় আপনা হইতেও বড়। হে শিষ্যপুত্রগণ, তোমরা কি বলিতেছ! শস্যের সঙ্গে আটষট্টি লক্ষ যোজন উচ্চতা বিশিষ্ট সুমেরু পর্ব্বতের তুলনা করিতে চাহিতেছ কি! হে পুত্রগণ, সর্ব্বজ্ঞ বুদ্ধের সঙ্গে আমাকে উপমা দিওনা। তারপর আচার্য্য মহোদয় শিষ্য মণ্ডলীকে কহিলেন- তাতঃ শিষ্যগণ; ভগবান বুদ্ধকে দান করিতে পারি মত, উপযুক্ত কোন প্রকার দানীয় বস্তু আমাদের সংগৃহীত নাই। ভগবানও দয়া করিয়া ভিক্ষাচরণের সময়ে উপস্থিত হইয়াছেন। চল আমরা যথাশক্তি দান দিয়া পুণ্য সঞ্চয় করি। যাও তোমরা উত্তম রসাল ও সুপরিপক্ক যে সমস্ত ফল আছে তাহা লইয়া আইস। শিষ্যেরা ফল আনিয়া আচর্য্যকে দিলেন। তিনি হাত ধুইয়া স্বয়ং তথাগত বুদ্ধের পাত্রে তাহা দান করিলেন। ভগবান ফলগুলি গ্রহণ করিলে দেবতারা আসিয়া তথায় দিব্য ওজঃ ধাতু দিয়া গেলেন। তাপস বুদ্ধের ব্যবহার্য্য জল নিজে ছাঁকিয়া আনিয়া দিলেন।

সূত্র — সারিপুত্র চরিত

Facebook Comments

বৌদ্ধদের আরো তথ্য ও সংবাদ পেতে হলে আমাদের ফেসবুক ফ্যান পেইজে লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন।: www.facebook.com/buddhisttimes

দি বুড্ডিস্ট টাইমস.কম একটি স্বতন্ত্র ইন্টারনেট মিডিয়া। এখানে বৌদ্ধদের দৈনন্দিন জীবনের বিষয়গুলোকেই তুলে আনার চেষ্টা করা হয়। পাশাপাশি যে কেহ লিখতে পারেন দি বুড্ডিস্ট টাইমস এ। দি বুড্ডিস্ট টাইমস এর সাথে লেখ-লেখিতে যুক্ত হতে চাইলে ব্যবহার বিধি ও নীতিমালা পড়ুন অথবা নিবন্ধন করুন
এখানে।
Article Categories:
বৌদ্ধধর্ম
http://www.thebuddhisttimes.com

ইলা মুৎসুদ্দি। সুপরিচিত ও জনপ্রিয় কলাম লেখক ও প্রাবন্ধিক। ই-মেইল:

Leave a Comment

error: অনুগ্রহ করে কপি/পেস্ট মনোভাব পরিহার করি নিজে লেখার যোগ্যতা অর্জন করুন।