Category archives for: বৌদ্ধধর্ম

গিরিশচন্দ্র বড়ুয়া বিদ্যাবিনোদ (১৮৯১-১৯৬৩)

গিরিশচন্দ্র বড়ুয়া বিদ্যাবিনোদ এর জন্ম ১৮৯১ সালে দক্ষিণ জোয়ারা, চন্দনাইশ, চট্টগ্রামে। তিনি পালি ও সংস্কৃত শিক্ষায় ব্রতী হন এবং আদ্য ও মধ্য পরীক্ষায় স্বর্ণপদক নিয়ে পাস করেন। এর কিছুদিন পর রেঙ্গুন গমন করেন। সেখানে বার্মা ভাষা শিখে পত্র-পত্রিকায় বার্মা ভাষায় প্রবন্ধাদি লিখেন। কয়েক বছর পর কলকাতায় আগমন করে ১৯২৩ সালে ৩২ বছর বয়সে মেট্রিকুলেশন এবং […]

পবিত্র ত্রিপিটক পরিচিতি: সূত্র পিটক

সূত্র পিটক পাঁচ ভাগে বিভক্ত।যথা: দীঘ নিকায়, মজ্জিম নিকায়, সংযুক্ত নিকায়, অঙ্গুত্তর নিকায় এবং খুদ্দক নিকায়।নিম্নে নিকায়সমূহের বর্ণনা দেওয়া হলো : ক. দীঘ নিকায় : দীর্ঘ নিকায় সূত্র পিটকের প্রথম ভাগ।দীঘ নিকায়ে সর্বমোট চৌত্রিশটি সূত্র আছে।সূত্রগুলো তিনটি বর্গে বিভক্ত।যথা : শীল স্কন্ধবর্গ, মহাবর্গ এবং পাটিকবর্গ।প্রথম বর্গে তেরোটি সূত্র আছে।সূত্রগুলো গদ্যে রচিত।দ্বিতীয় বর্গে দশটি সূত্র, তৃতীয় […]

দশ পারমী পরিচিতি

buddha

বৌদ্ধধর্মে ‘পারমী’ শব্দের অর্থ হচ্ছে  ‘কুশল কর্মেরপূর্ণতা’ বা আরো সাধারণ অর্থে ‘পারমী’ শব্দের অর্থ হলো: পূর্ণতা, সমাপ্তি, সম্পূর্ণতা, প্রকৃষ্ট কৌশল, গুণ, সম্পূর্ণ গুণ বা জ্ঞান, উন্নত অবস্থা, সৎকার্যের পূর্ণতা সাধন, সামর্থ্য, পারমিতা ইত্যাদি।  বৌদ্ধধর্মে পারমীর গুরুত্ব অপরিসীম। বুদ্ধত্ব লাভ বা নির্বাণ লাভ পারমী বিনা সম্ভব নয়। আমরা দেখি গৌতম বুদ্ধ বোধিসত্ত্বরূপে ৫৫০ বার জন্মগ্রহণ করে […]

বুদ্ধের জীবন পর্যালোচনা:

গৌতম বুদ্ধের সাম্যনীতির প্রয়োগ এবং এর সামাজিক প্রভাব

buddha and sunita

বুদ্ধের সমকালীন সমাজে নিম্নশ্রেণির মানুষের কোনো সামাজিক ও ধর্মীয় অধিকার ছিল না। বুদ্ধ অবহেলিত নিম্নশ্রেণির মানুষকে তাঁর প্রতিষ্ঠিত ভিক্ষুসঙ্ঘে প্রবেশাধিকার দিয়েছিলেন। সে সময়ে সমাজে নিম্নশ্রেণির মানুষের ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ, ধর্ম ও অন্যান্য বিদ্যা শিক্ষায় বিধি-নিষেধ ছিল। বুদ্ধ সঙ্ঘ প্রবেশের সুযোগ করে দিয়ে ধর্ম ও বিদ্যা চর্চায় তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করেন। এমনি প্রাসঙ্গিক দৃষ্টান্ত  প্রথমেই বলা […]

থেরীগণের শ্রেষ্ঠ মহাপ্রজাপতি গৌতমী

মহাপ্রজাপতি সুপ্রবুদ্ধের পরিবারে দেবদহ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি রানি মহামায়ার কনিষ্ঠ বোন ছিলেন। রাজা শুদ্ধোদন দুই বোনকেই বিয়ে করেন। জ্যোতিষীগণ ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন, তাঁদের প্রত্যেকের সন্তান রাজচক্রবর্তী রাজা হবেন। সিদ্ধার্থ গৌতমের জন্মের সপ্তাহকাল পরে তাঁর মাতা রানি মহামায়ার মৃত্যু হয়। মহাপ্রজাপতি গৌতমীই সিদ্ধার্থের লালন পালনের ভার গ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন নন্দের মাতা। কথিত আছে, তিনি নিজ […]

‘মৈত্রেয় বোধিসত্ত্ব’ উপাধিতে ভূষিত বুদ্ধঘোষ

বুদ্ধঘোষ ছিলেন বিখ্যাত পালি ‘অট্‌ঠকথা’ শব্দের অর্থ অর্থকথা বা ভাষ্য। বুদ্ধঘোষ খ্রিষ্টীয় পঞ্চম শতকে এক ব্রাহ্মণ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর জন্মস্থান নিয়ে মতভেদ রয়েছে। বুদ্ধঘোসুপ্পত্তি, চূল্লবংস প্রভৃতি গ্রন্থে তিনি বুদ্ধগয়ার নিকটবর্তী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন বলে উল্লেখ পাওয়া যায়। কিন্তু বর্তমানকালের পণ্ডিতগণ মনে করেন, তিনি দক্ষিণ ভারতের অন্ধ্র প্রদেশে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তাঁর পিতা ছিলেন পণ্ডিত ব্রাহ্মণ। […]

বৌদ্ধ ইতিহাসের মহাউপাসিকা বিশাখা

বুদ্ধের সময় অঙ্গরাজ্যের ভদ্দিয় নগরে উচ্চবংশজাত ধনবান এক উপাসক ছিলেন।তাঁর নাম ছিল মেণ্ডক শ্রেষ্ঠী। ধনঞ্জয় নামে তাঁর এক পুত্র ছিলেন।তাঁর স্ত্রীর নাম ছিল সুমনাদেবী।তাঁরা অত্যন্ত ধার্মিক এবং দান ও সেবাপরায়ণ ছিলেন।তাঁদেরই কোন আলো করে জন্ম নিয়েছিলেন বিশাখা।ছোটকাল থেকে বিশাখা অত্যন্ত উদার প্রকৃতির ছিলেন।দান ও বিবিধ কল্যাণকর্মের জন্য তাঁর খুবই সুখ্যাতি ছিল।দানকর্ম ও ভিক্ষুসঙ্ঘকে সেবা করার […]

নির্বাণের প্রকারভেদ,  বর্ণনা ও প্রয়োজনীয়তা

জীবের জীবন জন্ম-মৃত্যুর শৃঙ্খলে আবদ্ধ এবং কার্যকারন সম্বন্ধসঞ্জাত।যেকানে জন্ম-মৃত্যু বা কার্যকারণ সম্বন্ধ আছে সেখানে দুঃখ বার বার আঘাত হানে।নির্বাণ হচ্ছে জন্ম-মৃত্যুর শৃঙ্খলমুক্ত, কার্যকারন প্রবাহ রুদ্ধ এবং দুঃখমুক্ত এক সুখকর অবস্থা।নির্বাণ এক অলৌকিক অবস্থা, যা ভাষায় বর্ণনা করা কঠিন।নির্বাণ কারণসম্ভূত নয় বিধায় অবিনশ্বর।নির্বাণ লাভের পর আর জন্মগ্রহণ করতে হয় না।ফলে দুঃখও ভোগ করতে হয় না।তাই বৌদ্ধদের […]

ধুতাঙ্গ শীলের বিস্তারিত বর্ণনা

অল্পেচ্ছা ও যথালাভে সন্তুষ্টি গুণযুক্ত শীলই ধুতাঙ্গশীল। চিত্ত-ক্লেশ-ধুনন বা ধৌত করে বলে ধুতাঙ্গ বলা হয়। এ শীলের সাহায্যে চিত্তের পাপমল সত্বর পরিশুদ্ধ করা যায়। যে সকল কুলপুত্র বা ভিক্ষু আমিস পরিত্যাগ করেছেন, কায়ে ও জীবনে যাঁদের মমতা নেই, এবং যারা কেবল অনুলোম প্রতিপদ পূর্ণ করতে ইচ্ছুক-তাঁদের জন্যে ভগবান বুদ্ধ ত্রয়োদশ ধুতাঙ্গের ব্যবস্থা দিয়েছেন। ধুতাঙ্গশীল সমূহ […]

মহামঙ্গল সূত্রের বঙ্গানুবাদ

বুদ্ধ শ্রাবস্তীর জেতবন বিহারে অবস্থানকালে জনৈক দেবপুত্র কর্তৃক দেব-মনুষ্যগণের মঙ্গলের উপায় জিজ্ঞাসিত হলে বুদ্ধ আটত্রিশ প্রকার মঙ্গল-বিষয় ব্যক্ত করেন। এটাই মঙ্গল সুত্র। দ্বাদশ বছর পর্যন্ত দেবতা ও মনুষ্যগণ মঙ্গল বিষয় চিন্তা করেছিলেন। কিন্তু কিসে মঙ্গল হয় কেউ তা স্থির করতে পারেননি। অতঃপর এক দেবপুত্রের প্রশ্নে ভগবান বুদ্ধ সকল প্রকার পাপবিনাশক ও দেব-মানবের হিতের জন্য আটত্রিশ […]

এক নজরে পবিত্র ত্রিপিটক

ত্রিপিটক বৌদ্ধধর্মের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ। ত্রিপিটক হল বুদ্ধবাণী। মানবের দুঃখমুক্তির পথ-প্রদর্শনই এ মহান বাণীর মুখ্য উদ্দেশ্য। এ বিশালকায় ধর্মগ্রন্থ তিনটি পিটকে বিভক্ত- সুত্ত পিটক, বিনয় পিটক ও অভিধম্ম পিটক। সুত্ত পিটক পাঁচটি নিকায়ে বিভক্ত, যথা- ১) দীঘ নিকায়, ২) মজ্‌ঝিম নিকায়, ৩) সংযুক্ত নিকায়, ৪) অঙ্গুত্তর নিকায় ও ৫) খুদ্দক নিকায়। পঞ্চম ভাগ খুদ্দক নিকায়ে আছে […]

ধর্মীয় যে সব বিষয় আমাদের অধিকাংশেরই ভুল হয় (পর্ব: ১)

ধর্মের বিষয়ে আমরা সকলে কমবেশী সচেতন।প্রত্যহ চলার জীবনে ধর্মের নীতি-আদর্শ প্রতিপালনের মাধ্যমে  আমরা প্রকৃত মানুষ হিসাবে গঠিত হয় এবং মানব জীবনকে সার্থক করার প্রয়াস পায়। তারপরও ধর্মীয় বিভিন্ন বিষয় অনেক সময় অজান্তে আমরা অধিকাংশ ভুল করে থাকি। এই ধারাবাহিকে নিবন্ধে আমরা উপস্থাপন করার চেষ্টা করব তেমনি কয়েকটি ভুল বিষয়। প্রথম পর্বে আজ আলোচনা করব বুদ্ধের […]

ধুতাঙ্গ শ্রেষ্ঠ মহাকাশ্যপ স্থবির

মগধ রাজ্যের অন্তর্গত মহাতীর্থ নামক এক ব্রাহ্মণ গ্রাম ছিল। সে গ্রামের কপিল ব্রাহ্মণের গৃহে এক শিশুর জন্ম হয়। তাঁর নাম রাখা হয় পিপফলী। তিনি যৌবনে প্রব্রজ্যা গ্রহণের উদ্দেশ্য নির্জনে অবস্থান করতেন। মা-বাবার একান্ত অনুরোধে ভদ্রা কপিলানির সাথে তাঁর বিয়ে হয়। কিন্তু দুজনেই প্রব্রজ্যা প্রার্থী ছিলেন। তাঁরা দুজনে দুদিকে যাত্রা করলেন। এ সময় পৃথিবী কম্পিত হয়। […]

গৌতম বুদ্ধের অতীত জন্ম বৃত্তান্তঃ মহাধর্মপাল জাতক

প্রাচীন কালে বারাণসীর রাজা ছিলেন ব্রক্ষ্মদত্ত। তখন কাশীরাজ্যে ধর্মপাল নামে একটি গ্রাম ছিল। এই গ্রামে এক পন্ডিত ব্রাহ্মণ বাস করতেন। তিনি ছিলেন দশ কুশল ধর্ম আচরণকারী।তাঁকে লোকে বলত ধর্মপাল। তাঁর পরিবারের সব লোক ও দাস-দাসীরা পর্যন্ত দানশীলপরায়ণ ছিলেন। তারা শীল ও উপবাস ব্রত পালন করত। বোধিসস্ত্ব এই বংশে পন্ডিত ব্রাহ্মণের পুত্ররুপে জন্মগ্রহণ করেন।তাঁর নাম রাখা […]

কোশল রাজ রাজা প্রসেনজিত

রাজা প্রসেনজিত ছিলেন কোশলের রাজা।শ্রাবস্তী ছিল কোশলের রাজধানী এবং খুবই সমৃদ্ধশালী নগরী।শ্রাবস্তীতে বুদ্ধ অনেক ধর্মোপদেশ দান করেছেন।এখানে তাঁর জীবনের অনেক স্মৃতি বিজড়িত আছে।তাই শ্রাবস্তী বৌদ্ধদের একটি প্রধান তীর্থস্থান।এর বর্তমান নাম সাহেত-মাহেত।এটি বর্তমানে ভারতের উত্তর প্রদেশে অবস্থিত।প্রজেনজিত ছিলেন কোশলের রাজা মহাকোশলের পুত্র এবং বুদ্ধের সমসাময়িক।তিনি তক্ষশিলায় লেখাপড়া করেন।লিচ্ছবি মহালি এবং মল্ল রাজপুত্র ভণ্ডুল ছিলেন তাঁর সহপাঠী।তিনি […]

সারিপুত্র ও মৌদগল্যায়ন

বৌদ্ধধর্মের প্রচার-প্রসারে অনেক রাজা, মন্ত্রী, শ্রেষ্ঠী, উপাসক-উপাসিকা, ভিক্ষু এবং ভিক্ষুণী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।তাঁদের কর্ম ও অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বৌদ্ধধর্মের ইতিহাসে তাঁরা এখনও অমর হয়ে আছেন। তেমনি বুদ্ধশিষ্য সারিপুত্র ও মৌদগল্যায়ন ছিল অন্যতম। বুদ্ধ-প্রবর্তিত সঙ্ঘে সারিপুত্র ও মৌদগল্যায়নের অবস্থান ছিল শীর্ষে।তাঁরা ছিলেন বুদ্ধের অগ্রশ্রাবক।শ্রাবক শব্দের অর্থ হলো শিষ্য বা যিনি ধর্মীয় বিষয় শ্রবণ-ধারণ-পালন করেন।অতএব, অগ্রশ্রাবক হলো […]

নমো তস্‌স ভগবতো অরহতো সম্মাসম্বুদ্ধস্‌স এর উৎপত্তির ইতিবৃত্ত

“নমো তস্‌স ভগবতো অরহতো সম্মাসম্বুদ্ধস্‌স” এর বাংলা (আমি) সেই ভগবান অর্হৎ সম্যক্‌ সম্বুদ্ধকে নমস্কার করিতেছি। পবিত্র তীর্থ বুদ্ধগয়ার “মহাবোধিদ্রুম মূল”এ ভগবান তথাগত গৌতমের বুদ্ধত্ব লাভের দ্বিতীয় দিবসে “সাতগিরি” নামক যক্ষ অসুরগণের অধিপতি রাহু, চারিদিকের অধিপতি চারিলোকপাল দেবতা, ত্রয়স্ত্রিংশ দেবলোকের অধিপতি নৃপতি ব্রহ্মা বুদ্ধের সমীপে আগমন করে স্ততি করতে করতে এক একটি শব্দ এক একজন উচ্চারণ […]

বৌদ্ধধর্ম সম্পর্কে মহাজ্ঞানীদের উক্তি

১. বুদ্ধের মহত্ব: আমি উপলব্দ করতে পারছি না যে ‘প্রজ্ঞা কিংবা নৈতিক উৎকর্ষতা- কোনটার দিক যীশু খ্রীষ্ট ইতিহাসে বর্ণিত অন্যান্য মনীষীর মত উচ্চাসনে অধিষ্টিত রয়েছেন। এদিক থেকে বুদ্ধকে তাঁর উপরে স্থান দেয়া উচিত বলে আমি মনে করি। -রার্টান্ড রাসেল ২. সদগুণের মূর্ত প্রতীক: বুদ্ধ যে ধর্ম প্রচার করেছেন তিনি তারই মূর্তপ্রতীক। সুদীর্ঘ ৪৫বছর সার্থক ও […]

“নাম” এ কি আছে?

শ্রীসত্যনারায়ণ গয়েষ্কাঃ অতীতের কথা। কোন ব্যক্তির মা-বাবা তার ছেলের নাম রেখেছিলেন “পাপক”। সে যখন বড় হলো, তখন ঐ নামটা তার ভীষণ কারাপ লাগতে লাগলো। তখন সে আচার্যের কাছে প্রার্থনা করল- ভান্তে, আমার নাম বদলে দিন। এই নাম খুব অপ্রিয়, কারণ এটা অশুভ, অমাঙ্গলিক এবং দুর্ভাগ্যসূচক। আচার্য তাকে বোঝালেন- দেখ, নাম হচ্ছে একটা “প্রজ্ঞপ্তি” মাত্র। ব্যবহার […]

বিশ্ব বৌদ্ধ ধর্মীয় পতাকার ছয় বর্ণের বর্ণনা

বিশ্ব বৌদ্ধদের ধর্মীয় পতাকা ছয়টি রঙ এ সমন্মিত। এই ছয় রংকে ছয়রশ্মি ও বলে। বিশ্ব বৌদ্ধ পতাকার ছয় রশ্মি হচ্ছে যথা, ১) নীল, ২) পীত বা হলুদ, ৩) লোহিত বা লাল, ৪) ওদাত বা শ্বেত বর্ণ, ৫) মুঞ্জিষ্ঠা বা কমলা, ৬) প্রভাস্বর। ১) নীলঃ মহাকারুণিক বুদ্ধের কেশ রাশি ও চক্ষুদ্বয়ের নীলবর্ণ স্থান হতে  প্রথম জ্যোতি […]

দন্ত ধাতু বন্দনা

একা দাঠা তিদসপুরে, একা নাগপুরে অহু । একা গান্ধার বিসযে, একাসি পূন সিহলে। চতস্সো তা মহাদাঠা, নিব্বাণ রসদীপিকা। পুজিতা নরদেবেহি, তা’পি বন্দামি ধাতুযো ।

দন্ত ধাতু বন্দনা

একা দাঠা তিদসপুরে, একা নাগপুরে অহু । একা গান্ধার বিসযে, একাসি পূন সিহলে। চতস্সো তা মহাদাঠা, নিব্বাণ রসদীপিকা। পুজিতা নরদেবেহি, তা’পি বন্দামি ধাতুযো ।

বোধি বন্দনা

যস্সমূলে নিসিন্নোব, সব্বারি বিজযং অকা। পত্তো সব্বঞঞূতং সত্থা বন্দেতং বোধিপাদপং । ইমেহে তে মহাবোধি লোকনাথেন পূজিতং । অহম্পিতে নমস্সামি বোধিরাজা নমত্থুতে।

সারীপুত্র মহাস্থবিরের শেষ জন্মের কাহিনী (৫)

সারীপুত্র মহাস্থবিরের শেষ জন্মের কাহিনী (৫) শ্রাবক পারমী জ্ঞানে পরিপূর্ণতা লাভের পর তিনি কী উক্তি করিয়াছিলেন? ইলা মুৎসুদ্দী   পড়ুন, জানুন এবং ধর্ম ধারণে সচেষ্ট হোন। মহাজ্ঞানী ধর্ম্মসেনাপতি সারীপুত্র বুদ্ধ ধর্ম্মের সারবত্তা উপলব্ধি করিতে পারিয়া, দুঃখ প্রাপ্ত প্রাণীদের কল্যাণ মানসে বজ্রকণ্ঠে বলিয়াছেন- অহো! আমি দেব-মানবের শাস্তা ভগবান অনোমদর্শী বুদ্ধকে শ্রদ্ধার সহিত পূজা-সৎকার করিয়া যেই অমৃতময় […]

Smiley face

সর্বশেষ টাইমস

Recent Posts: NivvanaTV covering Buddhist and Buddhist community in World, with weekly news, views, entertainment, and programs for all age.

কুমিল্লায় ৩শ’ বছর পুরোনো বৌদ্ধ বিহার সদৃশ্য নকশা উদ্ধার

কুমিল্লায় ৩শ’ বছর পুরোনো বৌদ্ধ বিহার সদৃশ্য নকশা উদ্ধার

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার নিমসার বাজার সংলগ্ন একটি জমি থেকে মাটি খুড়ে তিন স্থরের একটি বৌদ্ধ বিহার সদৃশ নকশা অবকাঠামো পাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয় গণমাধ্যম সূত্র বলছে, গত ১০ জানুয়ারী কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার নিমসার বাজার সংলগ্ন একটি জমির মাটি ভরাটের কাজ করার সময় বৌদ্ধ মন্দির সদৃশ্য নকশাটি পেয়ে কাজে নিয়োজিত শ্রমিকেরা এটি লুকিয়ে পেলে। পরে […]

Photo Gallery

Top Downloads

Icon

The Buddhist Times Android apps 46.21 KB 54 downloads

...
Icon

অভিধর্ম্মার্থ সংগ্রহ 1.65 MB 1 downloads

গ্রন্থের নামানুসারে ইহা একটি অর্থ-সংগ্রহ...
Developed by Dhammabiriya
error: অনুগ্রহ করে কপি/পেস্ট মনোভাব পরিহার করি নিজে লেখার যোগ্যতা অর্জন করুন।